-

নীরজা ভানোত তরুণীদের জন্য অনুপ্রেরণা গল্প

মেয়েটির নাম নীরজা ভানোত। মুম্বাইয়ে জন্ম নেয়া মেয়েটি মডেলিং শুরু করে খুব অল্প বয়সে। সফলতাও আসে। কিন্তু ঐ সময় মডেলিং পেশাটা সবার কাছে সম্মানজনক ছিলোনা। বিয়ে হয়ে যায় মেয়েটির। যৌতুকের চাপ আসতে শুরু করে প্রথম থেকেই, সেই সাথে শারীরিক নির্যাতন। মেয়েটি ডিভোর্স নিয়ে নেয়। নতুন পথচলার স্বপ্ন দেখে। মধ্যবিত্ত পরিবারের ভীষণ সুন্দরী মেয়েটির শখ ছিলো আকাশ ছোঁয়ার। বিখ্যাত ‘প্যান অ্যাম’ এয়ারলাইন্সের চীফ ফ্লাইট এ্যাটেন্ডেন্ট হিসেবে কাজ শুরু করে এই মেয়ে। নীরজার জন্ম ১৯৬৩ সালে।

কোনো মানুষের জীবনে ভারত এবং পাকিস্তান- দুই দেশেই সর্বোচ্চ সম্মান পাওয়ার ঘটনা বিরল। কিন্তু এই নীরজা সেই অতি বিরলদের একজন। পাকিস্তান সরকার নীরজাকে দিয়েছে তাদের দেশের সর্বোচ্চ বেসামরিক পুরস্কার ‘নিশান এ পাকিস্তান’। যুদ্ধক্ষেত্রের বাইরে শান্তিপ্রতিষ্ঠার জন্যে ভারতের সর্বোচ্চ বেসামরিক পুরস্কারও পেয়েছে নীরজা- ‘আশোক চক্র’। মাত্র ২৩ বছরের জীবনেই এত অর্জন মেয়েটির। নীরজা ভানুত সত্যিই এক কিংবদন্তি।

১৯৮৬ সালের সেপ্টেম্বরে ‘প্যান অ্যাম’ এয়ারের ফ্লাইট ছিনতাই করে সন্ত্রাসীরা। ফ্লাইটটি মুম্বাই থেকে নিউইয়র্ক যাচ্ছিলো। মাঝে পাকিস্তানের করাচীতে ছিলো ট্রানজিট। ঐ সময়ই ফ্লাইটটির দখল নেয় সন্ত্রাসীরা। নীরজা ছিলো ঐ ফ্লাইটের চীফ এ্যাটেন্ডেন্ট। ১৯ ঘন্টা সন্ত্রাসীরা জিম্মি করে রাখে প্লেনের ৩০০ জন যাত্রীকে। এই পুরোটা সময় ভীষণ সাহস আর কৌশলে নীরজা ধীরে ধীরে সবাইকে বাঁচানোর উপায় খুঁজতে থাকে। চাইলে প্রথমেই পালিয়ে যেতে পারতো সে। কিন্তু সে এমনটা করেনি। প্লেনের প্রায় সব যাত্রীকেই বাঁচাতে সক্ষম হয় নীরজা। কিন্তু একদম শেষে ধরা পড়ে যায় সন্ত্রাসীদের চোখে। যাত্রীদের বাঁচানোর অপরাধে খুব কাছ থেকে গুলি করে হত্যা করা হয় নীরজাকে। ঐ সময়ও সে তিনটি বাচ্চাকে প্লেন থেকে লুকিয়ে বের করতে চেষ্টা করছিলো, তার গুলিবিদ্ধ শরীর দিয়েও ঐ বাচ্চাদের আগলে রাখছিলো।

ঐ ফ্লাইটে ৭ বছরের এক শিশু ছিলো। এখন সে বিখ্যাত এয়ারলাইন্সের পাইলট। তার কথায় ‘আমার জীবনের প্রতিটা ক্ষণ আমি নীরজাকে স্মরণ করি। কারণ আমি তার কারনেই দ্বিতীয় জীবন পেয়েছি’। এই মহীয়সি নারীকে নিয়ে ২০১৬ সালে বলিউড সিনেমা তৈরি করেছে- ‘নীরজা’। চাইলে যে কেউ দেখতে পারে, অসাধারণ একটা ছবি।

ঐ জীবনের কি-ই বা মূল্য যদি তা অন্যের কাজে না এলো? ৩০০ মানুষের জীবন বাঁচিয়ে মাত্র ২৩ বছর বয়সে চলে গেছে নীরজা ভানুত। তবে তার নাম বেঁচে রইবে হাজার বছর শতকোটি মানুষের অন্তরে সাহসীকতার প্রতীক হয়ে। আজ ৭ সেপ্টেম্বর- তার জন্মদিন। তার স্মৃতির প্রতি গভীর শ্রদ্ধা…

লেকখ : Rumel M S Pir

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

সর্বশেষ প্রকাশিত